বর্তমান যুগ প্রতিযোগিতার যুগ। হোক সেটা স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে কিংবা চাকরির বাজারে। যুগে যুগে চাকরির বাজারে ঘটেছে উল্লেখ্যযোগ্য পরিবর্তন। প্রতিযোগিতা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের রিক্রুটারদের রিকোয়ারমেন্টস এও এসেছে পরিবর্তন। বর্তমান যুগের প্রতিযোগিতাপূর্ণ চাকরির বাজারে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যে বিষয়টি তা হলো স্ব-উন্নয়ন বা সেল্ফ ইম্প্রুভমেন্ট। 


স্ব উন্নয়ন বা সেল্ফ ইম্প্রুভমেন্ট আসলে কি? কেনইবা এটি এত গুরুত্ব বহন করে? উত্তরটা খুব সহজ। সেল্ফ ইম্প্রুভমেন্ট হলো নিজের কথাবার্তা, আচার আচরন, দৃষ্টিভঙ্গি, অভ্যাস, চলাফেরাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে’র বর্তমান অবস্থা থেকে নিজের যথেষ্ট উন্নতি সাধন করা। স্বভাবতই প্রত্যেক মানুষ ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে। কিন্তু চাকরির ক্ষেত্রে সকল প্রতিষ্ঠান এর কিছু নির্দিষ্ট আচরণবিধি বা Code Of Conduct থাকে যেটি সকলকেই সমানভাবে মেনে চলতে হয়। তাই প্রত্যেকটি মানুষ যেমনই হোক না কেনো, প্রতিষ্ঠানের আচরণবিধি মেনে নিজের ইমেজ প্রতিষ্ঠার জন্য স্কুল,কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের এই দীর্ঘ সময়ে স্ব-উন্নয়ন এর  পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে।
উদাহরণস্বরূপ বলা যেতে পারে, একজন মানুষ আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলতে খুব বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে যেটি অবশ্যই ভালোদিক কিন্তু চাকরির ক্ষেত্রে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানগুলোতে যখন কাজ করতে হয় তখন চলতি ভাষায় কথাবার্তার মাধ্যমে অফিস এর কাজকর্ম সম্পাদন করতে হয়। তাই সেল্ফ ইম্প্রুভমেন্ট এর মাধ্যমে নিজের কথাবার্তার উন্নতি সাধন করতে হবে। আবার কিছু কিছু মানুষ এর অনেক বদঅভ্যেস থাকতে পারে। কিন্তু চাকরির ক্ষেত্রে সকল বদ অভ্যেস পরিহার করা আবশ্যক। নিজের অভ্যেস এর উন্নয়ন ঘটিয়ে সদঅভ্যেস গড়ে তুলতে হবে। শুধু চাকরিই নয়, প্রত্যেক মানুষকেই জীবনের সকল ক্ষেত্রে বদ অভ্যেস পরিহার করতে হবে। এছাড়াও প্রত্যেক মানুষকে তার আচার আচরন, দৃষ্টিভঙ্গি, চলাফেরারও উন্নতি ঘটাতে হবে। প্রত্যেক প্রতিষ্ঠান ই চায়, তাদের প্রতিষ্ঠানের কর্মজীবীদের ব্যবহার অমায়িক হবে, চলাফেরা হবে নম্র, দৃষ্টিভঙ্গি হবে সর্বদা ইতিবাচক। তাই সকল মানুষকেই নিজের রাগ এবং মেজাজকে নিয়ন্ত্রণ এর মাধ্যমে নিজের আচার ব্যাবহার উন্নত করতে হবে, নিজের চিন্তাধার উন্নয়ন ঘটাতে হবে। এছাড়াও বর্তমান যুগে সকল প্রতিষ্ঠান সৃজনশীল মানুষকে প্রাধান্য দেয়। সেক্ষেত্রে প্রত্যেকের উচিত, নিজের সৃজনশীলতা কে শান দেয়ার মাধ্যমে উন্নত করা।

ALSO READ  Growth Mindset

সেল্ফ ইম্প্রুভমেন্ট এর পরিসর অনেক বৃহৎ। নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে হলে বিভিন্ন ক্ষেত্রে নিজের বর্তমান অবস্থার উন্নয় ঘটানো অত্যাবশ্যক। এতে যেমন নিজের ক্যাপাসিটি কে সম্পূর্ণরূপে প্রকাশ করা যায়, তেমনি স্ব-উন্নয়ন এর মাধ্যমে নিজের আত্মবিশ্বাস ও দৃঢ় হয়। 

What’s your Reaction?
+1
+1
11
+1
+1
+1
18
+1
+1
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x