Live, love, laugh
Skip to toolbar

স্বাধীনতার মানে-Abhinandan Barua-1st-Bangla Story

একুশটি গান স্যালুট। ঠিক গুনে গুনে একুশটি গান স্যালুট পড়বে আজ। লালকেল্লায় দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী তেরঙা উত্তোলন করবেন, সাথে কুচকাওয়াজ , পেশী ক্ষমতা প্রদর্শন..হবে নাই বা কেন আজ যে সমস্ত দেশবাসীর উৎসবের দিন… আজ যে ১৫ই আগস্ট..ভারতের ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবস..

প্রধানমন্ত্রীর অফিসে আজ বিরাট হৈচৈ। সবাই ব্যস্ত, সবাই দৌড়োচ্ছে। বিশ্রাম নেই প্রধানমন্ত্রীর গাড়ির ড্রাইভার ইসমাইলেরও।আজ যে তার উপরেও গুরুদায়িত্ব। রাষ্ট্রনেতাকে গন্থব্যে পৌঁছে দিতে হবে যে। ক্যামেরার আলো হয়ত এক মুহূর্তের জন্য তার দিকেও তাক করা হতে পারে, তখন যাতে পেছনের সিটে বসা পক্ককেশীর বেশভূষার সাথে মানানসই হয়.. তাকেও তো সেরকম কিছু পড়তে হবে। নাহলে চলে নাকি? এই সাতপাঁচ ভাবতে ভাবতেই ইসমাইল শুধুমাত্র আজকের উপলক্ষ্যে সরকারের তরফ থেকে দেওয়া নতুন পাট করা ইউনিফর্ম পড়ে ফেলে। মাথায় টুপি পড়ে নিজেরই কেমন মনটা আনন্দে দুলে ওঠে..।

আরে ওয়াহ, ইয়ে ইউনিফর্ম বহত যাচ্ রাহা হে মেরেকো… এই বলতে বলতে এক ঠান্ডা হাসি ফুটে উঠেই মিলিয়ে যায় ইসমাইলের মুখে..
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আজ নিশ্বাস ফেলার ফুরসৎ পাচ্ছেন না…

দেশের সবচেয়ে ক্ষমতাবান পুরুষ আজ দেশের আমজনতার প্রতি বার্তা রাখবেন জনসাধারণের মাঝে দাঁড়িয়ে…সমস্ত দেশবাসী এমনকি প্রচুর প্রবাসী ভারতীয় আজ তাকিয়ে থাকবে তাঁরই দিকে। অভেদ্য নিরাপত্তার কঠিন ঘেরাটোপে পুরো অনুষ্ঠানটি নামাতে হবে.. একটা মাছিও যাতে তাঁর অনুমতি বিনে প্রবেশ করতে না পারে। সরেজমিনে সব কিছু তাই খতিয়ে দেখছেন অতি খুঁতখুঁতে তিনি।
আর তিন ঘন্টা পর মূল অনুষ্ঠান। সারাক্ষণ একটার পর একটা ফোন আসছে মন্ত্রীর কাছে। এরই ফাঁকে নিজের কানে মোবাইল ধরে রাখা অবস্থাতেই স্বরাষ্ট্রসচিবের কাছে খোঁজ নেন। গোটা লালকেল্লা চত্বর পরিষ্কার করা হয়েছে কিনা..এখনো খানিকটা বাকি আছে শুনেই চিৎকার করে ওঠেন তিনি। আঙ্গুল নাড়িয়ে ইশারায় বলেন যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কাজ গুটিয়ে নিতে

ALSO READ  Behind The Curtain - Sadia Bintay Rouf : 3rd Place Winner

.
স্বরাষ্ট্রসচিব ফোন করে লালকেল্লার দায়িত্বে থাকা বেসরকারী সাফাইকর্মীদের প্ৰধান ভীম রাওকে..
কেয়া হুয়া রে রাও?অভি তাক নাহি হুয়া তুম লোগোকা?মন্ত্রীজি চিল্লা রাহা হে… তুম লোগো কা নাখরা বাজি, নাক মে দাম কার দিযে হো..
ওপাশ থেকে কিছু একটা শুনে, মনের মতো উত্তর না পেয়ে অফিসারের গলার স্বর আরো চড়ে যায়।
এ সুন.. সুন মেরি বাত, এক ঘান্টা দে রাহা হু তুম আদিওয়াসী গাওয়ারও কো.. আগার আগলি একঘা ঘন্টা মে আগার কাম খাতাম নাহি হুয়া তো তুম লোগ কো একভি পায়শা নাহি মিলে গা .. সমঝ লিও..

কি গো দিদি?? পতাকা লিবে না গো? আজকে তো স্বাধীনতা দিবস..২তো পতাকা লাও না দিদি??দেখো না দিদি??একটা টুপি লাও? দেখো সকাল থেকে কিছুটি বিক্রি হয়নি.. বিশাখার হাতটা টেনে ধরে আছে ছেঁড়া ফ্রক পড়া মেয়েটা, ঝুলে পড়েছে একদিকে..।
এই..স্বাধীনতার মানে বল আগে?তারপর তোর থেকে পতাকা কিনবো..
পড়া ধচ্ছ দিদি?আমি তো ইশকুল যাই লা..।

কেন যাস না?হ্যাঁ?
বাবা বলে ইস্কুলে কি হবে?পয়সা না কামালে কেউ খেতে দিবে লা..
তো কি করিস?
এখান থেকে বাসে উঠি..বাবুঘাট যাই… আমার ২টো পাথর আছে..।বাজিয়ে গান করি..হিন্দি গান..
তা আজ কো পয়সা লাভ হলো?
দিদি ৮০টাকা…
আচ্ছা..।এটা রাখ..আর যে কয়টা টুপি আর পতাকা আছে আমায় দেয়..
৩টে পতাকা..৪টে টুপি…
দিদি..আবার এস..আমি এখানেই থাকি..ধারামতলার বস্তিতে…
আচ্ছা..।আবার আসবো…কিন্তু তোর তো নাম জানিনা..তোর নাম কি রে??
আমার নাম??মেরি…

পাড়ায় আজ ইনডেপেন্ডেন্স ডে কাপের খেলা। মৌলালি যুবকবৃন্দ বনাম বউবাজার ইয়ুথ ক্লাবের খেলা। ২ দলই ফাইনালে উঠেছে নিজেদের দলগত নৈপূণ্যে। তবে শিয়ালদহ যৌননপল্লীর ছেলে ভবতোষ ওরফে ভবা সেমিফাইনালে পিছিয়ে পরেও যেভাবে একাই ২টো গোল করে বৌবাজার ইয়ুথ ক্লাবকে ফাইনালে তুলেছে তা মাঠে আসা ফুটবলপ্রেমীদের মন একপ্রকার মাতিয়ে দিয়েছে। ছুটির দিনে ভাত মাংস খেয়ে মাঠে হাওয়া খেতে আসা পরিমবাবুও উত্তেজনার বশে সঙ্গে আনা এক প্যাকেট ফ্লেকও অজান্তে উড়িয়ে দিয়েছেন.. আবার একটা সিগারেট বার করতে গিয়েই দেখে বিপত্তি..
কত্তা!!ও কত্তা!! এবার নাহয় একটা বিড়ি ধরান..কি?? হে হে হে..

ALSO READ  SALUTATIONS TO HER UNFADING GLORY-SUSHMITA DUTTA-2nd-English Poem

এই খেনখেনে গলা তো ওই একটা ব্যক্তিরই হতে পারে। পরিমলবাবু না তাকিয়েই বলে উঠলো।
অ….. চিনু যে..তা দাও দেখি..তোমার সাধের গোপাল বিড়ি একখানা.. সিগারেটের তো আবার দাম বেড়েছে..
হুঁ…তা কত্তা ছেলেটাকে দেখলেন? ৫নং জার্সি… ডান পা তো নয় যেন শান দেওয়া খুরপি.. খাপ খুললেই খুন…কি?? হে হে হে..
তা বটে..অফুরন্ত দম ছেলেটার.. আরেকটা জিনিস কি লক্ষ্য করেছ চিনু??
কি কত্তা??
ছেলেটা প্রথম হাফে ডিফেন্ডারদের মার খেয়ে একটুও দমেনি বরং সেকেন্ড হাফে আরো বেশি খেলা খুলেছে..
তা কত্তা এত বয়স হয়েও আপনার বাজপাখির দৃষ্টি কমেনি.. হে হে হে..
হুম..।
ফাইনালের ফলাফল ৩-১ বউবাজার পক্ষে।। ভবতোষ মল্লিক হ্যাট্রিক।।
প্রথমার্ধে এক গোলে এগিয়ে থেকেও দ্বিতীয়ার্ধে ভবার একার কাছেই ধরাশায়ী হয়ে পড়ে গতবারের চ্যাম্পিয়ন টিমের তাবড় তাবড় ডিফেন্ডাররা.. শেষে ভবাকে না থামাতে পেরে লাল কার্ড খেয়ে শেষের ১২মিনিট ১০জনে খেলে মৌলালি যুবকবৃন্দ টিম।
বুঝলে তো চিনু.. এই ছেলেকে কালচার করলে বাংলা একজন সেরা উঠতি তারকা পাবে..
ভবা?বাড়ি এলি নাকি?
হ্যাঁ গো দাম্মা..
যা হাত মুখ ধুয়ে নেয়…আমি খাবার গরম দি..
আচ্ছা দাম্মা? ইন্ডিপেন্ডেন্স মানে কি?
ইন্ডিপেন্ডেন্স মানে স্বাধীনতা রে..
স্বাধীনতা কি গো??

…………স্বাধীনতা…ইন্ডিপেন্ডেন্স.. আজাদী..একটাই শব্দ একটাই মানে..স্বাধীন কথার খুব সহজ অর্থ স্ব এর অধীন..স্ব মানে নিজে…নিজের অধীনে অর্থাৎ নিজের দায়িত্ব যে নিজে নিতে সক্ষম তাকে বলে স্বাধীন ব্যক্তি..কিন্তু আসলে কি তাই??পরাধীন বা পরের অধীন থেকে মুক্ত হয়ে নিজের অধীনে গমন মানেই কি স্বাধীনতা বা স্বাধীন হওয়ার মানে? ইসমাইল ভীম রাও মেরি বা ভবতোষও স্বাধীন.. কাদের থেকে স্বাধীন? ব্রিটিশদের পরাধীনতার থেকে। কিন্তু তারা কোথাও গিয়ে আমাদের সাথে এক পংক্তিতে উচ্চারিত হয়না.. তাদের কাছে স্বাধীনতা মানে ২বেলা পয়সা কামিয়ে খাবার জোগাড় করাই…এর বাইরে কিছু নয়.. এর বাইরে কিছু হতে পারেনা..বা পারলেও এদের চোখে ধরা দেয়না.. এরা স্বাধীন নয়.. কারণ এদের চিন্তাধারা সীমাবদ্ধ..এটা এদের দোষ নয়। আমরাও স্বাধীন নয়। আমরাও অধীন। কিসের অধীন?আমাদের পুরাতন চিন্তার অধীন। পুরাতন ধ্যানধারণা র অধীন। তাই এই আমার সমাজটা যে সবার এই সহজ কথা ভাবতেই আমরা ভুলে গেছি। এই সমাজে যেমন আমার থাকার বা বাস করার অধিকার আছে ঠিক সমান অধিকার আছে একজন সমকামীর। একজন ধর্ষিতার। একজন বৃহন্নলার। এক বেশ্যার ছেলের। কিন্তু আমরা আমাদের স্বাধীনতার অধিকারকে নিজের স্বার্থে স্বার্থপরতার নিরিখে মাপতে পছন্দ করি। আমরা সহজ সত্যটাই ভুলে যাই যে সমাজকে ব্যতিরেকে কখনই ব্যক্তিবিশেষে স্বাধীনতা অর্জিত হয়না।

ALSO READ  Independence-Shifat Khan-3rd-English Poem

More From Author

What’s your Reaction?
+1
+1
+1
+1
+1
+1
+1
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x