Success is yours
Skip to toolbar

নাগরিকদের জানা ভালো:যে অভিধান প্রতিটি নাগরিকদের জন্য

একটি দেশে বসবাসকারী জনগণ,যারা রাষ্ট্রের প্রতি বিভিন্ন দায়িত্ব-কর্তব্য পালনের মাধ্যমে বিভিন্ন অধিকার ভোগ করে থাকে,তারাই দেশের নাগরিক।রাষ্ট্রে বসবাস করে কিছু গুণাবলি অর্জনের মাধ্যমের একজন সুনাগরিক হিসেবে নিজেকে গড়ে তোলা যায়।বলা হয়ে থাকে,সুনাগরিকরাই রাষ্ট্র্বের সম্পদ।নাগরিক হিসেবে আমাদের কে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন অবস্থার মুখোমুখি হতেই হয়,যেগুলোর সম্পর্কে পূর্ব জ্ঞান থাকা টা খুব ই জরুরি।বিভিন্ন সময়েই আমরা এমনো কিছু পারিভাষিক শব্দ শুনে থাকি।আমরা হয়তো অনেকে তাদের অর্থ জানি না।এরকম পরিস্থিতিসমূহ কে খুব সহজেই বুঝে নেওয়ার জন্য বিচারপতি মুহাম্মদ হাবিবুর রহমানের অসাধারণ এই বইটি রচনা।

বইটিতে তিন ভাগে আলোচনা করা হয়েছে সেইসব বিষয় সমূহ যেগুলো সকল নাগরিকের না জানলেই নয়।দেশে বসবাসকারী নাগরিকদের দেশের ইতিহাস সম্পর্কে জানা টা খুব ই দরকারি।তাই প্রথম ভাগে বইটিতে তুলে ধরা হয়েছে খুবই সংক্ষিপ্ত পরিসরে বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিজয়গাঁথা।বঙ্গভঙ্গ থেকে শুরু করে বিভিন্ন আন্দোলন ও বাংলাদেশ নামক একটি স্বাধীন রাষ্ট্রের অভ্যুদয় পর্যন্ত ঘটনাগুলো দিয়েই ইতি টানা হয়নি,স্বাধীন বাংলাদেশের সংবিধানের গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আলোচনা করে হয়েছে বইটিতে।সংবিধানের আলোকে নাগরিকদের অধিকারসমূহ ও রাষ্ট্রের প্রতি কর্তব্য সমূহ এমনভাবে আলোচনা করা হয়েছে যা শুধুমাত্র আইনের ছাত্রদের নয়,যেকোনো সচেতন নাগরিকদের জন্যই সংবিধান কে জানা টা কে অনেকাংশে সহজ করে দিয়েছে।আরো আলোচনা করা হয়েছে পৌরনীতির বিভিন্ন বিষয়,দেশের নির্বাহী,বিচার ও শাসন বিভাগ সম্পর্কেও।দেশের শিক্ষাব্যবস্থার পাশাপাশি অর্থনীতিতে বাংলাদেশের অতি দ্রুততার সাথে এগিয়ে যাওয়া ও উন্নয়নের অন্তরায় থাকা বিষয় সমূহ দেখানো হয়েছে সূক্ষ্ণভাবে।শিক্ষার প্রসার,জনসংযোগ থেকে শুরু করে বাংলাদেশের যাবতীয় বিষয়াদি খুব সহজ করে প্রতিটি নাগরিকের কাছে বোধগম্য করার গুরুদায়িত্ব যে লেখক নিয়েছেন,তা নি:সন্দেহে বলাই চলে।

বইটির দ্বিতীয় ভাগটিকে লেখক উল্লেখ করেছেন বর্ণানুক্রমিক সূচি হিসেবে যেটিকে আপনি এক কথায় বলে দিতে পারেন এক অভিধান যা সুনাগরিকদের জন্যই।অভিধানের মতই বর্ণানুক্রম রেখে লেখক সংক্ষিপ্ত পরিসরে আলোকপাত করে গেছেন আইন,সংবিধান,অর্থনীতি,রাজনীতি,শিল্প-সংস্কৃতি,ঐতিহ্য,শিক্ষা থেকে শুরু করে এমন অনেক বিষয়ের উপর যা একজন নাগরিক হিসেবে আপনাকে ততোটুকুই জ্ঞানের সঞ্চার করবে যা প্রকৃতপক্ষেই আপনার দরকার।ওয়ারেন্ট অফ প্রিসিডেন্স,ক্যাঙ্গারু কোর্ট,ফার্স্ট পাস্ট দ্যা পোস্ট,ম্যান্ডেইমাস আরো অজস্র টার্ম আছে পাঠকদের জন্য।

ALSO READ  কিভাবে আমরা একজন ভালো মানুষ হতে পারি?

বইটির তৃতীয় ভাগে রয়েছে নির্বাচিত কালপঞ্জি,শুরুটা খ্রিস্টপূর্ব ৮০০০ থেকে এবং ২০১৩ সাল পর্যন্ত যত ঐতিহাসিক,গুরুত্বপূর্ণ ও উল্লেখযোগ্য ঘটনাদি রয়েছে,তারিখ অনুসারে খুব সংক্ষিপ্ত পরিসরে লেখক তুলে ধরেছেন।এই পঞ্জিটি বাংলার ইতিহাসের একটি সারমর্ম ও বটে।যেকোনো ঘটনার সময়কাল খুজে বের করার জন্য বইয়ের শেষে এই মহামূল্যবান সংযোজন টি পাঠক কে যথেষ্ট সাহায্য করবে।

লেখক বিভিন্ন সময়েই বিভিন্ন অভিধানমূলক গ্রন্থ রচনা করেছেন এবং এই গ্রন্থটিও কিছুটা অভিধানের ভাবটি বজায় রেখেই লেখা।সুনাগরিকতা শিখার জন্য এরকম অভিধান গ্রন্থ লেখার কাজ টি আগে কখনো নেওয়া হয়নি বললেই চলে।লেখক ব্যক্তিগত জীবনে ১৯৯৫ সালে বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি এবং ১৯৯৬ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে ছিলেন।আইন নামক বিষয়টির প্রতি লেখকের অতি গভীর জ্ঞান থাকায় বইটিতে আইনের বিষয় গুলো ও পারিপার্শ্বিক অন্যান্য বিষয় গুলো তুলে ধরা হয়েছে দক্ষ হাতে নিপুণ ভাবে।

পরিশেষে প্রশ্ন উঠতে পারে,বইটি কাদের জন্য???
হ্যা,বইটি আপনার জন্য,আমার জন্য,সকলের জন্য,একটি রাষ্ট্রের সকল নাগরিকদের জন্য।প্রত্যেক নাগরিক ই হয়তো কোনো না কোনো বিষয়ে পারদর্শী কিন্তু সকল বিষয়ে না অবশ্যই।সকল বিষয়ে পারদর্শী হওয়া সম্ভব নয়।কিন্তু একজন নাগরিক হিসেবে মৌলিক বিষয় সমূহের সকল স্তরেই জ্ঞান থাকা টা বাধ্যতামূলক না হলেও বইটি আপনাকে শিখাবে রাষ্ট্রের একজন সুনাগরিক হতে।বইটির শিক্ষাই আপনাকে পরিণত করবে রাষ্ট্রের একজন সম্পদে।রাষ্ট্র আপনাকে সর্বদা একজন সুনাগরিক হিসেবেই প্রত্যাশা করে।এবং এই ধারণা গুলো তখন ই আপনি উপলব্ধি করবেন যখন বইটির শিক্ষা প্রতিফলিত হবে আপনার মাঝে।

More From Author

    None Found

What’s your Reaction?
+1
13
+1
+1
6
+1
+1
+1
+1
4
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x